Thursday, October 3, 2019

আজ পৌরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে দেখা করতে বাধ্য করিয়ে দাবী আদায় করলো শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ

আজ পৌরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে দেখা করতে বাধ্য করিয়ে দাবী আদায় করলো শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ


আজ পঞ্চমী তা সত্বেও পেশাগত দাবীতে লড়াই দেখাল শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ৷ ধারাবাহিক লড়াই র ফলে জীবনের প্রথম বোনাস (৪০০০ টাকা) পেয়েছে পঞ্চায়েতের SSK/MSK/AS শিক্ষক শিক্ষিকা৷তারপরে গত ১ লা অক্টোবর সারাদিন ধর লড়াই করে রাত ৭ টায় নবান্ন থেকে মাদ্রাসার SSK/MSK শক্ষকদের বোনাসের অর্ডার সংগঠন বের করল৷ কিন্তু পৌরসভার SSK/MSK/AS দের বোনাস সহ নানা দাবি আদায় হচ্ছিল না৷কারন পৌরমন্ত্রীকে পাওয়াই যাচ্ছিল না৷
অবশেষে নেতৃত্ব বলিষ্ট সিদ্ধান্ত নেন ২৪ ঘন্টার নোটিশে রাজ্যের বিভিন্ন পৌরসভা থেকে ৫০০ র বেশি শিক্ষক শিক্ষিকারা আজ সকাল ৯ টা থেকে পৌরমন্ত্রীর পুজো বলে পরিচিত "চেতলা অগ্রণীসংঘের" সামনে জমায়েত হন নিজেদের দাবির জন্য৷
পৌরমন্ত্রী মানণীয় ফিরহাদবাবু যখন আজ ও দেখা দেবেন না বলেছিলেন তখন শিক্ষিরা তাঁর বাড়ির সামনে অবস্থানে বসেন নিজের হকের জন্য৷ পুলিশর সঙ্গে শিক্ষিকাদের বাতানুবাদা ও ধ্বস্তাধ্বস্তি হয়৷পরে মন্ত্রী ৫ জন প্রতিনিধির সাথে বৈঠকের সম্মতি দেন৷
আমি সহ ৪ জন বিভিন্ন জেলার শিক্ষিকা প্রায় ৪০ মিনিট মন্ত্রীর সাথে বৈঠক করলাম৷
আমাদের সামনে মন্ত্রীমশাই অর্থসচিবকে ফোন করে বোনাস ছেড়ে দিতে বলেন৷ সাথে যাতে শিক্ষিকারা মাস পায়লা বেতনসহ ব্যাঙ্কের মাধ্যমে বেতন পান তার ব্যবস্থা করেন৷ বিদ্যালয়ের ছাত্র/ছাত্রীদের জুতো,জামা সহ মিড ডে মিলের ব্যবস্থার আশ্বাস দেন পুজোর পরে৷ নানা পৌরসভার নানা সমস্যা একত্রিত করে আমাদের সংগঠনের সাথে ১৮ ই অক্টোবর পৌরভবনে সচিবসহ মন্ত্রীর উপস্থিতিতে বৈঠকে বাকী সমস্যার সমাধানের আশ্বাস দেন৷আমরা মন্ত্রীমশাই কে অবশেষে  সংগঠনের পক্ষ থেকে শারদীয়ার শুভেচ্ছা জানিয়ে কর্মসুচী শেষ করলাম৷ সাথে প্রমান হলো হকের্ লড়াই যে কোনো সময় সঠিকভাবে করলে সাফল্য আসে৷
আজ ১০ টি পৌরসভার শিক্ষিকারা এসেছিলেন বাকী পৌরসভার শিক্ষিকাদের দাবী ও আদায় হয়েছে ৷সুতরাং সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে আগামি দিনে আরো সংঘবদ্ধ লড়াই করতে হবে
মইদুল ইসলাম
সাধারণ সম্পাদক
শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ
০৩/১০/১৯

No comments:

Post a Comment

এখন যদি করেন কেস , অচিরে ই হবেন শেষ

এখন যদি করেন কেস , অচিরে ই  হবেন শেষ    প্রচলিত অনেক কথা আছে ------ "শিকারী বিড়ালের গোঁফ দেখলেই চেনা যায়  বা   মায়ের চেয়ে মাসির দরদ বেশ...