Monday, October 14, 2019

"ঝোপ বুঝে কোপ মারা" শিখতে হলে মাছরাঙার শরণাপন্ন হন ! SSK MSK শিক্ষকেরা অবশ্যই পড়ুন

"ঝোপ বুঝে কোপ মারা" শিখতে হলে মাছরাঙার শরণাপন্ন হন ! SSK MSK শিক্ষকেরা অবশ্যই পড়ুন


ssk msk movement are totaly scripted
"ঝোপ বুঝে কোপ মারা" কাকে বলে ?


আমার শেষ লেখাতে যা প্রশ্ন তোলা হয়েছিল তার একটিও যুক্তিযুক্ত উত্তর পায়নি । যেটা পেয়েছি সেটা হল "গা-জোয়ারি" কথাবার্তা । জানি সময় লাগবে মোহ কাটতে । তাই আবারো শুরু করছি .... "ঝোপ বুঝে কোপ মারা" কাকে বলে জানেন ? চলুন আজ এটা নিয়েই আলোচনা করবো ! "ঝোপ বুঝে কোপ মারা" যদি শিখতে চান তাহলে মাছরাঙার শরণাপন্ন হন !

SSK MSK আন্দোলনের প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত যেটা হয়েছে সেটা হল "ঝোপ বুঝে কোপ মারা" !
চলুন দেখে নেওয়া যাক এই কথার মধ্যে সত্যতা কতটা আছে ? আমি আগের লেখাতে প্রমান করেছি SSK MSK আন্দোলন শুরু হওয়ার আগেই SSK MSK বেতন বৃদ্ধির খসড়া প্রস্তুত হয়ে গেছিল । আর সে খবর  গোপন ছিল না , সকলেই জেনে গেছিল সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে। তাই আন্দোলন চালিয়ে গেলে মাছ খাবে সবাই , নাম হবে মাছরাঙার !
আর সেটাই হল ! দুবার ধর্ণা কর্মসূচি হল । কিন্তু ঘোষণা হল পার্শ্ব শিক্ষকদের মর্যাদা দেওয়া হবে । যেটা কিনা আন্দোলনের অনেক আগেই ঠিক হয়ে গেছিল  !
ধর্ণামঞ্চে এসে শিক্ষামন্ত্রী বললেন SSK MSK দের পার্শ্ব শিক্ষকের মর্যাদা দেওয়া হবে । হাত তালি পড়লো পার্শ্ব শিক্ষকের মর্যাদা দেওয়া হবে এই কথাতেই ( যেটা পূর্বেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল ) । কিন্তু সময় যেতে না যেতে আমরা বুঝলাম আমরা ঠকে গেছি ! মাছরাঙা দেখলো এই সুযোগ মাছ যা খাওয়ার খেয়ে নিয়েছি , যদি কিছু ভবিষ্যতের জন্যও সংরক্ষণ করা যায় !
কোনরকম পারমিশন ছাড়াই একরকম হঠকারী সিদ্ধান্ত নিয়ে নেওয়া হল বিধানসভা অভিযানের ! এই বিধান সভা অভিযানের মূল দাবিই ছিল SSK MSK শিক্ষকদের বেতন 18000 এবং 25000 করতে হবে ! যা হওয়ার তাই হল পুলিশ বর্বরোচিত আক্রমণে নামলো ! ধরে ধরে রাস্তায় ফেলে পেটানো হল পঞ্চাশোর্ধ শিক্ষকদের  ! শিক্ষককে পেটানো হচ্ছে এটা লজ্জা যেমন তৃণমূল সরকারের , যেমন পুলিশের তেমনি আপামর জনসাধারণের । শিক্ষককে মাটিতে ফেলে পেটানো হচ্ছে এর দোষী কি শুধুই তৃণমূল শাসিত পুলিশ ছিল ? নাকি সেই মাছরাঙাও সমপরিমাণ দোষী ছিল ? যে কোন পারমিশন ছাড়াই এরকম একটা হঠকারী সিদ্ধান্ত নিয়ে বয়স্ক শিক্ষকদের একরকম মৃত্যুমুখে ফেলে দিয়েছিল ? আমরা সত্যিই প্রশ্ন করতে ভুলে গেছি ! আমরা আজ মোহগ্রস্ত ! কেন কোন পারমিশন ছাড়া সেদিন জমায়েত করা হয়েছিল প্রশ্ন করুন সেই মাছরাঙাকে !

যতই আন্দোলন হোক দেখা গেল বেতন বৃদ্ধি সেই 10 হাজার আর 13 হাজারই করা হল । অকাকুরা ভবন থেকে সেটাই ঘোষণা করলেন শিক্ষামন্ত্রী । আবারো বলছি এখানে মাছরাঙা সাহেবের কোন কৃতিত্ব নয় ।  এটা আগে থেকেই ঠিক ছিল !

যে আন্দোলনের মূল দাবিই ছিল 18 হাজার আর 25 হাজার যখন দেখা গেলব 10 হাজার আর 13 হাজারের এক পয়সাও বারবে না , তখন মূল দাবীর কথা বেমালুম ভুলে গিয়ে এটাকেই আংশিক জয় বলে ঘোষণা করা হল ! যাইহোক নেতৃত্ব তো আর হাত থেকে ছেড়ে দেওয়া যায় না  ! এইটা হচ্ছে ঝোপ বুঝে কোপ মারার একটা উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত ! আরো আছে দাঁড়ান এখানেই শেষ হয়নি । সেদিন যেদিন অকাকুরা ভবন থেকে পার্শ্ব শিক্ষকদের সম্মান দেওয়া হবে এটা ঘোষণা করা হল , তখন বাইরে মাছরাঙা মহানন্দে লাল আবীর খেললেন , বিজয় মিছিল করলেন । কিন্তু শিক্ষকরা একটু বিরূপ হলেন যে পার্শ্ব শিক্ষকের মর্যাদাতে এত কিসের আনন্দ তখন আবারো ঝোপ বুঝে কোপ মারলেন মাছরাঙা ! বিজয় মিছিল হয়ে গেল বয়কট মিছিল ! আমরা বাহ ! বাহ ! বলে করতালি দিয়ে উঠলাম ! মাছরাঙা কি মহান ! এই প্রত্যেকটি ঘটনার ভিডিও প্রুফ রয়েছে চাইলে সেইসময়ের সোশ্যাল মিডিয়া ঘেঁটে এগুলো দেখে নিতে পারেন !

আমরা হলাম দীর্ঘদিন জল না পাওয়া চাতক পাখি ! তাই একফোঁটা জল পেয়েই আমরা মোহগ্রস্ত হয়ে পড়েছি । তাই এই মোহ কাটতে সময় লাগবে । আমরা হলাম সোনার ডিম পাড়া হাঁস । আমরা বুঝিনা সেই ডিমটার কত দাম ! কিন্তু মাছরাঙা আমাদের ঠিকই বুঝেছে । আচ্ছা এটা নিয়ে নাহয় অন্যদিন বলা যাবে । আজ আপাতত ঝোপ বুঝে কোপ মারা তেই সীমাবদ্ধ থাকি ।

তো যেটা বলছিলাম SSK MSK বিষয়ে যেকোন খবর যখনই পাওয়া যাচ্ছে  সেই খবরকে নিজের কৃতিত্ব বলে যে নির্লজ্জ্ব প্রয়াস তা এই মাছরাঙার কাছে শিখতে হয় ! প্রাথমিক শিক্ষকদের আন্দোলনও নাকি তার দেখানো পথে এগোচ্ছে ! একথা এই মাছরাঙা বেশ কয়েকবার বলেছে । আমি শুধু ভাবি এত মিথ্যা সম্ভবত আমাদের মাননীয়াও বলেন না ! আপনি কি জানেন এই প্রাথমিক শিক্ষকদের সংগঠন থেকে এই মাছরাঙাকে লেথিয়ে বের করে দেওয়া হয়েছে ! এর কারণটা শুনলে চমকে যাবেন ! না থাক ! কারণটা নাহয় সেই মাছরাঙাকেই জিজ্ঞেস করুন । আমি নিশ্চিত তার কাছ থেকে এর উত্তর পাবেন না ! অন্যদিন নাহয় আমিই বলে দেবো ! যেদিন সোনার ডিম পাড়া হাঁসের গল্প বলবো সেদিন নাহয় বলা যাবে । তবে এটুকু তো আপনারা বুঝতেই পারছেন কোন সংগঠন থেকে বহিস্কার করার অর্থ কি হতে পারে ! ভালো কাজ করলে নিশ্চয়ই সেটা কখনো করা হয়না !

তো চলুন আপনাদের ঝোপ বুঝে কোপ মারার একটা জ্বলন্ত উদাহরণ দি । যেটা খুবই সাম্প্রতিক কালের বিষয় । সেটা হল পুরসভার SSK বোনাস সংক্রান্ত বিষয় । নাটক কাকে বলে সেটা এই মাছরাঙ্গার কাছে শেখার আছে । পুরসভার SSK রা পুজোর আগে চারমাসের বেতন পেয়ে গেছেন । বোনাস পুজোর পরে হবে মোটামুটি সব সোশ্যাল মিডিয়ায় এই খবর ছড়িয়ে পড়েছে । কিন্তু তা বললে হবে কেন যা হয় মাছরাঙার কৃপাতেই হয় ! পঞ্চমীর দিন পুরসভার SSK দের নিয়ে তিন ঘণ্টার ধর্ণায় বসা হল মন্ত্রীর বাড়ির সামনে । তিন ঘন্টার মধ্যে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম নাকি ভয়ে কাঁপতে কাঁপতে এসে বললেন । পুজোর পর 18 তারিখ পুরসভার সমস্যা নিয়ে বসা হবে । বাবারে ! বিরাট জয় ! তিনঘন্টায় এত বড় জয় ! জয়ের বহর দেখে আমার তো চক্ষু ছানাবড়া ! আপনি কি কিছু বুঝলেন ? না আরো খুলে বোঝাতে হবে ? একেই বলে "ঝোপ বুঝে , কোপ মারা' !  পুজোর পরে পৌরসভার SSK রা বোনাস পাবে সেটা তো ঠিক হয়েই গেছিল ! তাহলে এই নাটক করার মানে কি ? একটু চোখ খুলুন বিগত সাত আটমাসে যা কিছু ঘটেছে সবই স্ক্রিপ্টেড ! অর্থাৎ নাটক ! জানি বিশ্বাস করতে কষ্ট হবে , কিন্তু এটাই বাস্তব ! আজ নাহোক কাল ঠিকই বুঝবেন । চলুন যেতে যেতে একটা ছড়া শুনে যান...

"ঝোপ বুঝে কোপ মারা
শিখতে চান যদি ,
মাছরাঙার কাছে তুচ্ছ
মমতা আর মোদী !
তাই বলি বন্ধুগণ
পায়ে ধরো তার
কৃপা করে দেয় যদি
নগদ বা ধার ! "

ধন্যবাদান্তে
জনৈক MSK শিক্ষক

No comments:

Post a Comment

এখন যদি করেন কেস , অচিরে ই হবেন শেষ

এখন যদি করেন কেস , অচিরে ই  হবেন শেষ    প্রচলিত অনেক কথা আছে ------ "শিকারী বিড়ালের গোঁফ দেখলেই চেনা যায়  বা   মায়ের চেয়ে মাসির দরদ বেশ...