Saturday, January 18, 2020

Ssk msk শিক্ষকরা সত্যিই অদ্ভুত

Ssk msk শিক্ষকরা সত্যিই অদ্ভুত 

Ssk msk শিক্ষকরা সত্যিই অদ্ভুত




অদ্ভুত আমরা msk ssk এর শিক্ষকরা । যে সরকার টা এই শিক্ষকদের ভবিষ্যতে ভেবে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ব্যাবস্থা করল deled করাল ।msk ssk চালা ঘরে পাকা ঘর করে দিল ।আর আজ যখন সেই কেন্দ্র গুলিকে বিদ্যালয়ের মর্যাদা দিতে যাচ্ছে তখন আমরা বলছি এটা চাই না ।অদ্ভুত আমরা ।যারা msk ssk গুলো তৈরি করল তাদের হাতে এগার বছর ছিল ।সুযোগ থাকা সত্ত্বেও তার করেনি । আইন টা কিন্তু 2001 সালের । সেই কারণেই 2001 সালের আগে যারা নিয়োগ হয়েছিল তাদের কিন্তু উচ্চ মাধ্যমিক অথবা deled কিছুই করতে হয়নি । 2011 সাল পর্যন্ত তারা একটি বারের জন্যেও ভাবে নি ।এদের উচ্চ মাধ্যমিক এবং deled না করালে একদিন এদের চাকরি চলে যাবে । সর্বশিক্ষার কোটি টাকা খরচ করতে না পেরে ঘুরে গিয়েছিল তবুও একটা টাকাও এই কেন্দ্র গুলিকে পরিকাঠামো উন্নয়নের জন্য দেয়নি ।আসলে কি জানেন এরা কোনো দিন ও চাই এই শিক্ষকরা ভালো জায়গায় যাক ।2010 সালে তাদের কাছে সুবর্ণ সুযোগ এসেছিল ।আমরা দেখলাম বাম শাসিত কেরল ও ত্রিপুরা করল আর আমাদের রাজ্যে নাটক শুরু করল পঞ্চায়েত বোডের ।অদ্ভুত আমরা ।এখনও তাদেরই ভজন গেয়ে যায় ।অদ্ভুত আমরা । 2010 পর কিন্তু কোনো সুযোগ আর আসেনি ।আজকে সমগ্র শিক্ষা লাঘু হওয়ার কারণে পুণরায সুযোগ এসেছে ।সেই সুযোগ টা কেই কাজে লাগাচ্ছে । নির্দেশ সমগ্র শিক্ষার বোডের আনূমোদন ও শিক্ষকের মর্যাদা । এই কারণেই উদ্যোগ । 60 or 65 option বিভাজন নয় । কেন্দ্র সরকারের সমগ্র শিক্ষার নিয়ম মেনে না করলে তারা তা মানবে না ।সারা দেশে সর্বশিক্ষার দশ লক্ষ শিক্ষক আছে ।নয় লক্ষের জন্য এক নিয়ম আর পশ্চিমবঙ্গের এক লক্ষের জন্য আলাদা নিয়ম করবে এটা ভাবেন কি করে? মনে রাখবেন সমগ্র শিক্ষার সুবিধা নিতে হলে 60 option ছাড়া কোনো উপায় নেই ।রাজ্য সরকার তো বলেনি সকল কেই 60 option নিতে হবে । আপনি চাইলে 60 option নাও নিতে পারেন । কোথাও বলা হয়নি 60 option না নিলে চাকরি চলে যাবে । আজকে তফাত টা দেখুন ।2010 সালে যে অডার সর্বশিক্ষার দিয়েছিল ঠিক তেমনি অডার 2019 সালে সমগ্র শিক্ষা দিয়েছে ।কি আছে বা ছিল সেই অডারে।ছিল এই শিক্ষা কেন্দ্র গুলি কে বোডের আনূমোদন দিয়ে শিক্ষকদের বেতন পরিকাঠামোর মধ্যে নিয়ে আসতে হবে । আরে বেতন তো দিত কেন্দ্র । কেবল রাজি হয়ে বোডের আনূমোদন টা দিলেই আজ অন্তত পক্ষে ত্রিপুরার মত 21 হাজার ও 27 হাজার টাকা বেতন টা পাওয়া যেত ।অদ্ভুত আমরা ।যারা আমাদের এত বড়ো সর্বনাশ করে গেল অথচ আমাদের কণ্ঠে তাদেরই ভজন শোনা যায় ।অদ্ভুত আমরা । বলবেন তাই বলে প্যারাটিচার ? না বন্ধু । কোথায় আপনাকে জায়গা টা করে দিবে ।আপনি কি ssc পাশ করে এসেছেন তাই আপনাকে পূর্ণ শিক্ষকের মর্যাদা দিবে ? আর এক ধরনের শিক্ষক আছে তারা guest teacher .।এটিও আপনি পাবেন না ।আর আছে প্যারাটিচার ।এই option ছাড়া আপনাকে বাচানোর দ্বিতীয় কোনো পথ নেই । তাছাড়া কেন এত প্যারাটিচারে এলার্জি ।তারা কি শিক্ষক নন ।মনে রাখবেন আইন যদি সত্যিই ঠিক থাকে তাহলে  2022 সালের পর প্যারাটিচার বলে কিছু থাকবে না ।তাদের কেউ পূর্ণ শিক্ষকের মর্যাদা দিতে হবে ।

No comments:

Post a Comment

এখন যদি করেন কেস , অচিরে ই হবেন শেষ

এখন যদি করেন কেস , অচিরে ই  হবেন শেষ    প্রচলিত অনেক কথা আছে ------ "শিকারী বিড়ালের গোঁফ দেখলেই চেনা যায়  বা   মায়ের চেয়ে মাসির দরদ বেশ...