Friday, March 27, 2020

Ssk msk শিক্ষকদের বর্তমান পরিস্থিতিতে কি করা উচিত ?


আজ শনিবারের শুভ সকালে সমস্ত SSK&MSK শিক্ষক, এবং AS দের জানাই আন্তরিকভাবে প্রীতি শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।
           আজ সারা বিশ্বের মানুষ কভিড-19 এর করাল গ্রাসের মধ্যে জীবন যাপন করছে, আমাদের ভারত বর্ষ সেখান থেকে রেহাই পায়নি, এমত অবস্থায় যখন আমাদের মত শিক্ষকদের এ বিষয়ে মানুষকে সচেতন করা খুবই প্রয়োজন, সরকারি নির্দেশকে মান্যতা দিয়ে প্রতিটি মানুষের লকডাউন এ থাকা বাঞ্ছনীয়, প্রতিটি মানুষের সোশ্যাল দূরত্ব বজায় রেখে চলা দরকার, দুরবর্তী কোন এলাকা থেকে যে কোন ব্যক্তি আপনার পাড়ায় প্রবেশ করলে সঙ্গে সঙ্গে তাকে চেকআপ করানোর জন্য হসপিটালে পাঠানোর প্রয়োজন। এই সমস্ত কাজগুলো এই মুহূর্তে আমাদের সকলের এক বাক্যে করা প্রয়োজন বলে আমি মনে করছি। অথচ সে জায়গায় দাঁড়িয়ে আমরা এখনো পর্যন্ত এই মহা বিপদের সময় একে অপরের বিরুদ্ধে কুৎসা করছি, খারাপ ভাষা ব্যবহার করছি, দল বা সংগঠন করার চেষ্টা করছি, যেটা এই মুহূর্তে মোটেই কাম্য নয়। আগে আমাদের জীবন তারপর অন্য কিছু। অথচ আমরা যদি কেউ ন্যূনতম 200 টাকা দেওয়ার কথা বলছে, সেখানে বিতর্ক করছি, কেউ একদিনের আয় দেওয়ার কথা বলছে, সেখানেও বিতর্ক করছি। আবার কেউ যদি বাড়ির পার্শ্ববর্তী গরিব মানুষদের সাহায্যের কথা বলছে সেখানেও বিতর্ক করছি। এক কথায় নিজের সংগঠনের কোন নেতা খারাপ প্রস্তাব দিলেও সমর্থন করছি। অপরদিকে অন্য সংগঠনের কোন নেতা ভালো কথা বললেও বিরোধিতা করছি। আপনারা সকলেই ভাবুন এই মুহূর্তে এই ধরনের মানসিকতা নিয়ে আমাদের চলা উচিত কিনা? এমতাবস্থায় আমি সমস্ত সংগঠনে নেতা ও কর্মীদের কাছে করজোড়ে আবেদন করছি, পুরনো দিনের সমস্ত গ্লানি মুছে দিয়ে, করোনা কে সামনে রেখে, সকলেই আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে চলার চেষ্টা করি। আসুন আমরা কয়েকদিন ঐক্যবদ্ধভাবে নিম্নলিখিত কয়েকটি  কাজে আন্তরিকভাবে মনোনিবেশ করি।,,,,

এই মুহূর্তে যে কাজ গুলি আমাদের করা দরকার।
1*সরকার ও স্বাস্থ্য কর্মীদের নির্দেশমতো লকডাউন সম্পূর্ণভাবে মেনে চলা।
2*পাশাপাশি পাড়া-প্রতিবেশীদের এ বিষয়ে সচেতন করা।
3*পারায় কোন বহিরাগত প্রবেশ করলে তাকে নজরে রাখা, প্রয়োজনে স্বাস্থ্যকর্মীদের খবর দিয়ে তার হেলথ চেকআপ করানোর ব্যবস্থা করা।
4*পাড়ার গরিব মানুষদের খোঁজখবর নিয়ে, তাদের সাধ্যমত সাহায্য করা।
5*মুখ্যমন্ত্রীর জরুরী ত্রাণ তহবিলে সাধ্যমত দান করা।
6*পাড়ার চায়ের দোকানে আড্ডা দেওয়া দেখলে দৃঢ়তার সঙ্গে প্রতিবাদ করা, না শুনলে পুলিশকে খবর দেওয়া।
********আসুন আমরা সকলে মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে কয়েকদিন এই গুরুদায়িত্ব গুলো পালন করি, এই মুহূর্তে কোন তর্ক নয়, বিতর্ক নয়, কুৎসা নয়, শত্রুতা নয় সকলেই মিলেমিশে এক হয়ে যায়, দেখবেন সকলের ভাল লাগবে। আগামী দিনেও এটা কাজে আসবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস। আরো অনেক কিছু লেখার ছিল, কিন্তু নেট বিঘ্ন ঘটাচ্ছে তাই আর বাড়াচ্ছি না এখানেই সমাপ্তি করলাম। কেউ কোন আঘাত পেলে ক্ষমা করে দেবেন।,,,,
                ধন্যবাদ
            আমিরুল মুর্শেদ
            নানুর, বীরভূম।
             28/03/2020

No comments:

Post a Comment

এখন যদি করেন কেস , অচিরে ই হবেন শেষ

এখন যদি করেন কেস , অচিরে ই  হবেন শেষ    প্রচলিত অনেক কথা আছে ------ "শিকারী বিড়ালের গোঁফ দেখলেই চেনা যায়  বা   মায়ের চেয়ে মাসির দরদ বেশ...